Text size A A A
Color C C C C
পাতা

সাধারণ তথ্য

ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার ক্ষুদ্রসেচ সংক্রান্ত সাধারণ তথ্যাবলি :

 

১। জেলার মোট আয়তন ১,৯২,৭০০ হেক্টর, উপজেলা সংখ্যা ০৯ টি চাষযোগ্য জমি ১,৫০,৩৮১ হেক্টর, সেচযোগ্য কৃষি জমির পরিমাণ ১,৩৫,৩৪২ হেক্টর, সেচকৃত জমি ১,০৮,৪৫০ হেক্টর, সেচের শতকরা হার ৭২.১০ %।

২। পানির উৎস : (ক) ভূ-পরিস্থ নদ-নদী, খাল- বিল : মেঘনা, তিতাস, লঙ্গন নদী প্রমুখ।

                   (খ) ভূ-গর্ভস্থ পানির আধার।

৩। সেচযন্ত্রের সংখ্যা : গভীর নলকূপ- ৩৫৪ টি অগভীর নলকূপ- ১২,৮৪৫ টি, শক্তিচালিত পাম্প- ৪,১২৯ টি, ভাসমান পাম্প- ০২ টি।

৪। বিএডিসি কর্তৃক পরিচালিত সেচয্ন্ত্র : গভীর নলকূপ- ৯২ টি, শক্তিচালিত পাম্প- ১২৮ টি, ভাসমান পাম্প- ০২ টি।

৫। ভূ-গর্ভস্থ পানিতল সর্বনিম্ন আগস্ট হতে সেপ্টেম্বর ০-১.০০ মিটার। সর্বোচ্চ এপ্রিল হতে মে ৩.০০-৩.০০ মিটার।

৬। জেলার সেচ উন্নয়নে করণীয় :

         (ক) আশুগঞ্জ এগ্রো ইরিগেশন প্রকল্পের সেচ অবকাঠামো আধুনিকায়ন করা । 

           (খ) নাছিরনগর, নবীনগর, কসবা উপজেলার ভূ-গর্ভস্থ পানিতল সাকশন লিমিটের বাহিরে চলে যায়। বিধায় সীমিত আকারে গভীর নলকূপ স্থাপনের ব্যবস্থা করা ।

         (গ) পর্যায়ক্রমে গভীর নলকূপ, অগভীর নলকূপ ও এলএলপি স্কীমে বারিড পাইপ সেচনালা নির্মাণ করা।

         (ঘ) ভূ-গর্ভস্থ পানির পুর্নভরণ ও খালের পানি পাপ্র্যতা বৃদ্ধির জন্য খাল খননন কার্যক্রম অব্যাহত রাখা।

         (ঙ) সেচ দক্ষতা বৃদ্ধির জন্য কৃষক প্রশিক্ষণ কার্যক্রম গ্রহণ করা ।